You are currently viewing সভ্য

সভ্য

সভ্য

কেন্দ্রীয় পরিষদ কর্তৃক সহগামী পরীক্ষায় উত্তীর্ণের মাধ্যমে সভ্য ফরম পূরণ করতে পারবে এবং সভ্য সিলেবাস সম্পন্ন করে জাতীয় সংগঠন “বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট” এর তত্ত্বাবধায়নে কেন্দ্রীয় পরিষদ কর্তৃক পরিচালিত সভ্য পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হতে হবে। গঠনতন্ত্রে উল্লেখিত সাংগঠনিক যোগ্যতাসমূহ অবশ্যই থাকতে হবে। (সংশোধনী- ২০০৯, ২০১৯)

সভ্যের শর্তাবলীঃ কোন সহগামী যদি সভ্যতে উন্নীত হতে চান তাহলে তাকে নিম্নোক্ত শর্তাবলী পালন একান্ত আবশ্যক। (সংশোধনী’ ২০০৫)

(১) সভ্যের জন্য নির্ধারিত আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। (সংযোজন ২০১০)
(২) সভ্যের জন্য নির্ধারিত সিলেবাস সম্পন্ন করতে হবে। (সংযোজন ২০১০)
(৩) কেন্দ্রীয় পরিষদ পরিচালিত সভ্য পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হতে হবে। (সংশোধনী ২০১০)
(৪) ইসলাম সম্পর্কে এতটুকু জ্ঞান অর্জন করতে হবে, যাতে সত্য-মিথ্যা বা ভ্রান্ত মতবাদের পার্থক্য বুঝতে সক্ষম হন।
(৫) নিজের সকল কাজকর্মে, সততা, ন্যায়পরায়ণতা ও একাগ্রতার সাথে প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম, সাহাবায়ে কেরাম ও আউলিয়ায়ে কেরামের আনুগত্য স্বীকার করতে হবে।
(৬) ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত’ পরিপন্থী সকল রকমের ভ্রান্তিরোধে সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হবে।
(৭) ছাত্রসংগঠনে জড়িত থাকা অবস্থায় জাতীয় সংগঠন ও তার কোন অঙ্গসংগঠনের সাথে জড়িত থাকতে পারবে না। এবং অন্য কোন রাজনৈতিক দলের সাথে সম্পৃক্ত থাকতে পারবে না। (সংশোধনী’১৫, ১৯)
(৮) ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আতের দৃষ্টিতে যারা ভ্রান্ত, এ রকম ভ্রান্তমত পোষণকারীদের সাথে সকল প্রকারের সম্পর্ক, বন্ধুত্ব, ভালবাসা পরিহার করতে হবে।
(৯) সহগামী হবার তিনবছর পর সভ্য পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। (সংশোধনী’১৫, ১৯)